Namecheap.com
Published On: Sun, Jun 24th, 2018

আপনার ব্লাডগ্রুপ কি A, B বা AB? তাহলে সাবধান!

আপনার ব্লাড গ্রুপ কি? A, B বা AB? উত্তর যদি নেতিবাচক হয় তাহলে খানিক চিন্তামুক্ত। তবে উত্তর যদি ইতিবাচক হয়, তাহলে চিন্তার বিষয় আছে বৈকি। ১০ লাখের বেশি সংখ্যক মানুষের উপর করা একটি সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে যাঁদের ব্লাড গ্রুপ এ, বি অথবা এবি তাঁদের হৃদরোগে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা অনেকটাই বেশি। বিজ্ঞানীদের মত এ, বি অথবা এবি ব্লাড গ্রুপে বেশি পরিমাণে ব্লাড-ক্লটিং প্রোটিন থাকার ফলে হৃদরোগের শঙ্কা বেড়ে যায়। নেদারল্যান্ডস-এর ইউনিভার্সিটি মেডিকাল সেন্টার গ্রনিনগেন-এর অধ্যাপক টেসা কোল জানিয়েছেন, ভবিষ্যতে হৃদরোগের থেকে বাঁচতে হলে বিশেষ নজর দিতে হবে ব্লাড গ্রুপে।

একটি আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাত্কাদরে ব্রিটিশ হার্ট ফাউন্ডেশনের অ্যাসোসিয়েট মেডিকাল ডিরেক্টর ডা. মাইক ন্যাপটন জানিয়েছেন, ‘বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই হৃদরোগের সম্ভাবনা নির্ভর করে কয়েকটি বিষয়ের উপর। তারমধ্যে রয়েছে বয়স, ওজন, কায়িক পরিশ্রম, ধূমপান, রক্তচাপ, কোলেস্টেরল এবং ডায়াবিটিস।’ অতএব সুস্থ থাকতে গেলে মেনে চলতেই হবে তিনটি নিয়ম— স্বাস্থ্যকর খাওয়াদাওয়া, ধূমপান বন্ধ করা এবং নিয়মিত এক্সারসাইজ করা।

Read also:

যারা সকাল বেলায় লেবুজল পান করেন, জেনে নিন তার ফলাফল কতটা মারাত্মক হতে পারে…

লেবুজল পান করেন- অধিকাংশ ক্ষেত্রে আমরা লেবুজল পান করার সময় চোখ মুখ কুঁচকে এক অদ্ভুত অভিব্যক্তি প্রকাশ করে থাকি। যদিও আমরা প্রায় সকলেই বিশ্বাস করি সকালে ঘুম থেকে উঠে এক গ্লাস লেবু জল পান করা স্বাস্থ্যের পক্ষে খুবই ভালো।লেবুর রস গরম জলের সাথে মিশিয়ে সেই মিশ্রণ সকালে এক গ্লাস খেলে আমাদের শরীরের অতিরিক্ত মেদ কমাতে সহায়তা করে ।কোন সন্দেহ নেই এটি একটি অবাক করা পদ্ধতি যা সাম্প্রতিক আবিস্কৃত হয়েছে। এই পদ্ধতির গুণাবলীও বহুবিধ কিন্তু এই মিশ্রণ প্রস্তুতিকরনের ক্ষেত্রে একটি ভুল পন্থা অবলম্বন করা হয়ে থাকে।আপনিও সাবধান হোন, পরের বার এই মিশ্রণ তৈরির ক্ষেত্রে যাতে কোন ভুলচুক না হয়।সঠিক মিশ্রণ সেবন করুন ও উপকার পান ।সকালে ঘুম থেকে উঠে খালি পেটে লেবু জল পান করা আমাদের শরীরের বহুবিধ উপকার সাধনে গুরত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে ।

এটি আমাদের শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাকে বাড়াতে সহায়তা করে, ত্বকের ঔজ্জ্বল্যতা বৃদ্ধি করে এবং শরীরের মেদ কমাতে সহায়তা করে। এছাড়াও এই পানীয়টি ঠান্ডা লাগা, জ্বর ও সর্দি কাশির হাত থেকেও আমাদের প্রতিরোধ করে।এই লেবুর জুস আমাদের শরীরে প্রচুর পরিমাণে পটাশিয়াম ও ভিটামিনের জোগান দেয় এবং এর ফলে আমাদের স্বাস্থের শ্রীবৃদ্ধি ঘটে ।তাই তো আমরা বলি প্রতিদিন সকালে এক গ্লাস লেবু জল পান করুন কিন্তু তা তৈরি করার পদ্ধতি যেন সঠিক হয় ।ছবিতে দেখানো লেবু জল প্রস্তুতের পদ্ধতিটি ভুল আছে কারন এর মধ্যে লেমন পিল ব্যবহার করা হয়নি ।লেবুর টুকরো বা পিল পুরো ফলের সবচেয়ে পুষ্টিকর অংশ তাই এটি ব্যবহার করুন।লেবুটিকে পিস পিস করে কাটুন এরপর সেগুলির রস বের করে জলের সাথে মিশিয়ে নিন, এছাড়াও রস বেরোনোর পরে লেবুর একটি থকথকে অংশ থাকে সেটিকেও লেবুর জলের সাথে মিশিয়ে দিন। মিশ্রণের জল যেন গরম হয়। এরপর ওই মিশ্রণ সেবন করুন ।তাই বলি সঠিক পদ্ধতিতে এই পানীয়টি প্রস্তুত করুন এবং তার উপকারিতা পান ॥