Namecheap.com
Published On: Sun, Jun 24th, 2018

অকালে চুলে পাক? হার্টটাও চেকআপ করান

মাথায় পাকা চুলের সংখ্যা বাড়ছে? সাবধান! যে কোনও মুহূর্তে আপনি হৃদরোগে আক্রান্ত হতে পারেন। সম্প্রতি এমনই তথ্য পেশ করেছেন কায়রো বিশ্ববিদ্যালয়ের হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ ডক্টর ইরিনি স্যামুয়েল। ডক্টর স্যামুয়েল জানিয়েছেন, ‘বয়স বাড়ার সঙ্গে হৃদরোগের আশঙ্কার অবিচ্ছেদ্য যোগ রয়েছে। পুরুষদের ক্ষেত্রে ত্বকের কিছু পরিবর্তন থেকে এই সম্ভাবনার আঁচ পাওয়া যায়। তবে এ ভাবে কার্ডিওভাস্কুলার রোগ নির্ণয়ের জন্য আরও গবেষণার প্রয়োজন রয়েছে।’ বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন, আথেরোস্ক্লেরোসিসের মতো চর্মরোগের মতোই চুল সাদা হওয়ার পিছনে একই প্রক্রিয়া কাজ করে। এই শারীরিক পরিবর্তনের পিছনে রয়েছে বেজোড় ডিএনএ মেরামত, অক্সিডেটিভ স্ট্রেস, প্রদাহ, হরমোন পরিবর্তন এবং সক্রিয় কোষের জরাপ্রাপ্তি। গবেষণায় চুলের রং হারানোর সঙ্গে হৃরোগে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনার নিবিড় যোগ দেখা গিয়েছে।

মোট ৫৪৫ জন প্রাপ্তবয়স্ক পুরুষের উপর সমীক্ষা করা হয় যাঁদের প্রত্যেকের হার্টের রক্তবাহী শিরা সংক্রান্ত রোগের আশঙ্কায় করোনারি অ্যাঞ্জিওগ্রাফি সার্জারি করা হয়েছে। চুলের রঙের ভিত্তিতে মোট ৫টি দলে তাঁদের ভাগ করা হয়: ১) সব চুল কালো, ২) বেশির ভাগ চুল কালো, ৩) কালো-সাদা চুলের পরিমাণ আধাআধি, ৪) কালোর চেয়ে সাদা চুলের সংখ্যা বেশি এবং ৫) পুরোপুরি সাদা চুল। সমীক্ষায় অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছিল হাইপারটেনশন, ধূমপান, ডাইস্লিপিডেমিয়া এবং হার্টের রোগের পারিবারিক ইতিহাস। সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে, ৩ থেকে ৫ নম্বরের মধ্যে থাকা পুরুষদের হৃদরোগের আশঙ্কা তুলনায় বেশি। ডক্টর স্যামুয়েলের পরামর্শ, চুল দ্রুত পাকতে থাকলে অবিলম্বে বিশেষজ্ঞের নির্দেশ মেনে চেক আপ করুন।

Read also:

যারা সকাল বেলায় লেবুজল পান করেন, জেনে নিন তার ফলাফল কতটা মারাত্মক হতে পারে…

লেবুজল পান করেন- অধিকাংশ ক্ষেত্রে আমরা লেবুজল পান করার সময় চোখ মুখ কুঁচকে এক অদ্ভুত অভিব্যক্তি প্রকাশ করে থাকি। যদিও আমরা প্রায় সকলেই বিশ্বাস করি সকালে ঘুম থেকে উঠে এক গ্লাস লেবু জল পান করা স্বাস্থ্যের পক্ষে খুবই ভালো।লেবুর রস গরম জলের সাথে মিশিয়ে সেই মিশ্রণ সকালে এক গ্লাস খেলে আমাদের শরীরের অতিরিক্ত মেদ কমাতে সহায়তা করে ।কোন সন্দেহ নেই এটি একটি অবাক করা পদ্ধতি যা সাম্প্রতিক আবিস্কৃত হয়েছে। এই পদ্ধতির গুণাবলীও বহুবিধ কিন্তু এই মিশ্রণ প্রস্তুতিকরনের ক্ষেত্রে একটি ভুল পন্থা অবলম্বন করা হয়ে থাকে।আপনিও সাবধান হোন, পরের বার এই মিশ্রণ তৈরির ক্ষেত্রে যাতে কোন ভুলচুক না হয়।সঠিক মিশ্রণ সেবন করুন ও উপকার পান ।সকালে ঘুম থেকে উঠে খালি পেটে লেবু জল পান করা আমাদের শরীরের বহুবিধ উপকার সাধনে গুরত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে ।

এটি আমাদের শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাকে বাড়াতে সহায়তা করে, ত্বকের ঔজ্জ্বল্যতা বৃদ্ধি করে এবং শরীরের মেদ কমাতে সহায়তা করে। এছাড়াও এই পানীয়টি ঠান্ডা লাগা, জ্বর ও সর্দি কাশির হাত থেকেও আমাদের প্রতিরোধ করে।এই লেবুর জুস আমাদের শরীরে প্রচুর পরিমাণে পটাশিয়াম ও ভিটামিনের জোগান দেয় এবং এর ফলে আমাদের স্বাস্থের শ্রীবৃদ্ধি ঘটে ।তাই তো আমরা বলি প্রতিদিন সকালে এক গ্লাস লেবু জল পান করুন কিন্তু তা তৈরি করার পদ্ধতি যেন সঠিক হয় ।ছবিতে দেখানো লেবু জল প্রস্তুতের পদ্ধতিটি ভুল আছে কারন এর মধ্যে লেমন পিল ব্যবহার করা হয়নি ।লেবুর টুকরো বা পিল পুরো ফলের সবচেয়ে পুষ্টিকর অংশ তাই এটি ব্যবহার করুন।লেবুটিকে পিস পিস করে কাটুন এরপর সেগুলির রস বের করে জলের সাথে মিশিয়ে নিন, এছাড়াও রস বেরোনোর পরে লেবুর একটি থকথকে অংশ থাকে সেটিকেও লেবুর জলের সাথে মিশিয়ে দিন। মিশ্রণের জল যেন গরম হয়। এরপর ওই মিশ্রণ সেবন করুন ।তাই বলি সঠিক পদ্ধতিতে এই পানীয়টি প্রস্তুত করুন এবং তার উপকারিতা পান ॥