পুকুরে গোসলের সময় স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ, কিশোর আটক

0
1171

কিশোর বয়স এখনও পার করেনি নাসির বিশ্বাস (১৪)। কিন্তু বখাটে হিসেবে এলাকায় এক নামে পরিচিত তিনি। আর সম্প্রতি তার বিরুদ্ধে পাওয়া গেছে ধর্ষণের অভিযোগ।

এরই মধ্যে নাসিরকে আটক করেছে পুলিশ। আটককৃত নাসির বরিশাল জেলার উজিরপুর উপজেলার হারুন বিশ্বাসের ছেলে। সে ও তার বড় ভাই (অটোচালক) রুবেলের ভাড়া বাসায় থেকে স্থানীয় একটি হোটেলে শ্রমিকের কাজ করে।

এ বিষয়ে শিবচর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আনোয়ার হোসেন জানান, ভুক্তভোগী স্কুলছাত্রী মেয়েটিকে একা পেয়ে নাসির ধর্ষণ করেছে বলে অভিযোগের প্রেক্ষিতে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। মেয়েটির সাথে কথা বলে ঘটনার বিবরণ শুনে ধর্ষক নাসিরকে আটক করা হয়েছে। এ ব্যাপারে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

জানা যায়, মাদারীপুর জেলার শিবচর উপজেলার উমেদপুর ইউনিয়নের চরকমলাপুর গ্রামের বাসিন্দা আচার বিক্রেতা তার স্ত্রী, দুই মেয়ে ও দুই ছেলেকে নিয়ে একই উপজেলার বাঁশকান্দি ইউনিয়নের শেখপুর বাজারসংলগ্ন একটি বাড়িতে ভাড়া থাকেন। সোমবার (৮ এপ্রিল) দুপুরে আচার বিক্রেতার মেজ মেয়ে ৫নং ছলেনামা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রথম শ্রেণির ছাত্রী বাসার পার্শ্ববর্তী একটি পুকুরে গোসল করতে যায়।

এ সময় পুকুর পাড়ে একই বাড়ির আরেক ভাড়াটিয়া রুবেল বিশ্বাসের ছোট ভাই নাসির বিশ্বাস (১৪) বড়শি দিয়ে মাছ ধরছিল। স্কুলছাত্রী মেয়েটি গোসল করতে গেলে আশপাশে কেউ না থাকার সুযোগে নাসির রশি দিয়ে মেয়েটির হাত বেঁধে মেরে ফেলার ভয় দেখিয়ে ধর্ষণ করে পালিয়ে যায়। পরে মেয়েটি হাতের বাঁধন খুলে কাঁদতে কাঁদতে বাসায় ফিরে আসে।

এ সময় মেয়েটির রক্তক্ষরণ দেখে তার মা কারণ জিজ্ঞেস করলে মেয়েটি ঘটনা খুলে বলে। পরে তাকে শিবচর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক ধর্ষিতা স্কুলছাত্রীর প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে শিবচর থানায় খবর দেয়।

খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে অভিযুক্ত ধর্ষক নাসিরকে আটক করে ও মেয়েটিকে উন্নত চিকিৎসার জন্য মাদারীপুর সদর হাসপাতালে প্রেরণ করে।

কিশোর বয়স এখনও পার করেনি নাসির বিশ্বাস (১৪)। কিন্তু বখাটে হিসেবে এলাকায় এক নামে পরিচিত তিনি। আর সম্প্রতি তার বিরুদ্ধে পাওয়া গেছে ধর্ষণের অভিযোগ।

এরই মধ্যে নাসিরকে আটক করেছে পুলিশ। আটককৃত নাসির বরিশাল জেলার উজিরপুর উপজেলার হারুন বিশ্বাসের ছেলে। সে ও তার বড় ভাই (অটোচালক) রুবেলের ভাড়া বাসায় থেকে স্থানীয় একটি হোটেলে শ্রমিকের কাজ করে।

এ বিষয়ে শিবচর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আনোয়ার হোসেন জানান, ভুক্তভোগী স্কুলছাত্রী মেয়েটিকে একা পেয়ে নাসির ধর্ষণ করেছে বলে অভিযোগের প্রেক্ষিতে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। মেয়েটির সাথে কথা বলে ঘটনার বিবরণ শুনে ধর্ষক নাসিরকে আটক করা হয়েছে। এ ব্যাপারে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

জানা যায়, মাদারীপুর জেলার শিবচর উপজেলার উমেদপুর ইউনিয়নের চরকমলাপুর গ্রামের বাসিন্দা আচার বিক্রেতা তার স্ত্রী, দুই মেয়ে ও দুই ছেলেকে নিয়ে একই উপজেলার বাঁশকান্দি ইউনিয়নের শেখপুর বাজারসংলগ্ন একটি বাড়িতে ভাড়া থাকেন। সোমবার (৮ এপ্রিল) দুপুরে আচার বিক্রেতার মেজ মেয়ে ৫নং ছলেনামা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রথম শ্রেণির ছাত্রী বাসার পার্শ্ববর্তী একটি পুকুরে গোসল করতে যায়।

এ সময় পুকুর পাড়ে একই বাড়ির আরেক ভাড়াটিয়া রুবেল বিশ্বাসের ছোট ভাই নাসির বিশ্বাস (১৪) বড়শি দিয়ে মাছ ধরছিল। স্কুলছাত্রী মেয়েটি গোসল করতে গেলে আশপাশে কেউ না থাকার সুযোগে নাসির রশি দিয়ে মেয়েটির হাত বেঁধে মেরে ফেলার ভয় দেখিয়ে ধর্ষণ করে পালিয়ে যায়। পরে মেয়েটি হাতের বাঁধন খুলে কাঁদতে কাঁদতে বাসায় ফিরে আসে।

এ সময় মেয়েটির রক্তক্ষরণ দেখে তার মা কারণ জিজ্ঞেস করলে মেয়েটি ঘটনা খুলে বলে। পরে তাকে শিবচর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক ধর্ষিতা স্কুলছাত্রীর প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে শিবচর থানায় খবর দেয়।

খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে অভিযুক্ত ধর্ষক নাসিরকে আটক করে ও মেয়েটিকে উন্নত চিকিৎসার জন্য মাদারীপুর সদর হাসপাতালে প্রেরণ করে।

LEAVE A REPLY