কোথায় আটকে রাখা হয়েছিল, বলছেন না সোহেল তাজের ভাগ্নে

সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী তানজিম আহমেদ সোহেল তাজের ভাগ্নে সৈয়দ মোহাম্মদ ইফতেখার আলম সৌরভকে (২৫) চট্টগ্রাম থেকে অপহরণের ১১ দিন পর ময়মনসিংহের তারাকান্দা উপজেলা থেকে উদ্ধার করেছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী।

ময়মনসিংহ জেলা পুলিশ সুপার শাহ আবিদ হোসেন জানান, সৈয়দ মোহাম্মদ ইফতেখার আলম ওরফে সৌরভের শারীরিক ও মানসিক অবস্থা ভালো এবং সুস্থ আছেন। তবে ১১ দিন ধরে তাকে কোথায় কিভাবে আটকে রাখা হয়েছিল, নির্যাতন করা হয়েছে কিনা, জানতে চাইলে এ ব্যাপারে সৌরভ কিছুই বলছেন না। তবে তাকে আটকে রাখা হয়েছিল এটুকুই বলেছে বলে জানান তিনি।

বৃহস্পতিবার (২০ জুন) সকাল পৌনে ৯টায় জেলা পুলিশ সুপারের কার্যালয়ের সামনে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে পুলিশ সুপার এ তথ্য জানান।

তারাকান্দা উপজেলার বটতলা নামকস্থানে জামিল অটো রাইস মিলের সামনে থেকে ভোর রাতে সৌরভকে উদ্ধার করেছে পুলিশ।

জেলা পুলিশ সুপারের কার্যালয়ের এক প্রেস ব্রিফিংয়ে পুলিশ সুপার শাহ আবিদ হোসেন জানান, কে বা কারা ভোরে চট্টগ্রামে নিখোঁজ সৈয়দ ইফতেখার আলম ওরফে সৌরভকে তারাকান্দা উপজেলার বটতলা মধুপুর এলাকার জামিল অটো রাইস মিলের সামনের রাস্তায় রেখে যায়।

এর পর সৌরভ ওই মিলে গিয়ে নিজের পরিচয় দিলে মিলের ম্যানেজার সমীর সৌরভের পরিবারকে খবর দেন। পরে পরিবারের পক্ষ থেকে চট্টগ্রামের আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে অবহিত করা হয়।

ভোর ৫টা ২০ মিনিটে চট্টগ্রাম এন্টি-টেররিজম ইউনিটের ডিসি আমাকে (ময়মনসিংহের পুলিশ সুপার) ফোন করে জানান- তারাকান্দা উপজেলার বটতলা মধুপুর এলাকার জামিল অটো রাইস মিলের সামনে সৌরভকে পাওয়া গেছে।

খবর পেয়ে তারাকান্দা থানার পুলিশসহ তিনি নিজে গিয়ে সৌরভকে উদ্ধার করে ময়মনসিংহে নিয়ে আসেন। পরে তার পরিবারের সঙ্গে কথা বলে তাদের চাহিদা অনুযায়ী পুলিশ পাহারায় তাকে বনানীতে পরিবারের কাছে পাঠানো ব্যবস্থা করা হয়। সৌরভের শারীরিক অবস্থা ভালো এবং তিনি সুস্থ আছেন।

এক প্রশ্নের জবাবে পুলিশ সুপার জানান, এ মুহূর্তে সৌরভের সঙ্গে কথা বলার মতো পরিস্থিতি হয়নি। তিনি রাইস মিলে একটি চেয়ারে বসাছিলেন।

উল্লেখ্য, গত ৯ জুন চট্টগ্রাম থেকে নিখোঁজ হন সৌরভ। ২৮ বছর বয়সী এই যুবক বন্দর নগরীর পাঁচলাইশ এলাকায় বাবা-মার সঙ্গে থাকেন; ঢাকায় ইনডিপেন্ডেন্ট ইউনিভাসির্টিতে পড়াশোনার পর চট্টগ্রামের একটি স্কুলে শিক্ষকতা করেন।

সৌরভের পরিবারের অভিযোগ, ঢাকার এক ব্যবসায়ীদের মেয়ের সঙ্গে সম্পর্কের জের ধরে তাকে অপহরণ করা হয়। এর পেছনে সরকারি কোনো বাহিনীর কর্মকর্তাদের হাত রয়েছে বলেও সোহেল তাজের সন্দেহ।

গত সোমবার সৌরভের মা সৈয়দা ইয়াসমিন আরজুমান ও বাবা সৈয়দ মো. ইদ্রিস আলমকে সঙ্গে নিয়ে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে সংবাদ সম্মেলন করে এ বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ চেয়েছিলেন সোহেল তাজ। সৈয়দা ইয়াসমিন আরজুমান ওই সংবাদ সম্মেলনে বলেন, গত ৮ জুন দুপুরে সৌরভের কাছে একটি ফোন আসে। তাকে চাকরি দেওয়ার কথা বলে সব কাগজপত্র তৈরি রাখতে বলা হয়। পরদিন বেলা ৩টায় আবার ফোন করে সৌরভকে চট্টগ্রাম মিমি সুপার মার্কেটের আগোরার সামনে থাকতে বলা হয়।

ওই ব্যবসায়ীদের মেয়ের সঙ্গে সম্পর্কের কারণে এর আগেও কয়েকবার সৌরভকে তুলে নিয়ে গিয়ে হুমকি দেওয়া হয়েছিল বলে অভিযোগ করা হয় সৌরভের পরিবারের পক্ষ থেকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*