চোখ, নাক ও মুখ দিয়ে বের হচ্ছে শুধু রক্ত! (ভিডিও)

যে সময় বই খাতা নিয়ে টেবিলে পড়তে বসার কথা, সেই সময়ে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে আতিয়া তুর রাহী (কথা)। দুই ভাই বোনের মধ্যে বড় রাহী। বাবা আব্দুর রহমান ন্যাশনাল হেলথ্ কেয়ারে কম্পিউটার আপেরেটার হিসাবে কর্মরত। রাহীর গ্রামের বাড়ি লক্ষীপুরের রামগঞ্জে হলেও বেরে উঠেছে ঢাকায়। হাজেরা উচ্চ বিদ্যালয় থেকে আসন্ন এসএসসি পরীক্ষায় বিজ্ঞান বিভাগ থেকে অংশ নেওয়ার কথা তার। কিন্তু আদৌ সে পরীক্ষায় অংশ নিতে পারবে কি না সে নিজেও জানে না।

দীর্ঘ পাঁচ বছর ধরে বিরল রোগে অসুস্থ রাহী। অসুস্থ শরীর নিয়ে পড়ালেখা চালিয়ে যাচ্ছেন ঠিকমতো। কিন্তু সম্প্রতি তার শরীরের অবস্থা এতটাই অবনতি হয়েছে যে ঠিক মত খেতেও পারছে না রাহী।

রাহীর চোখ-কান, গলা-নাভি, নাক; এমনকি শরীরের চামড়া থেকে নিয়মিত রক্ত বের হচ্ছে। রাহীর চিকিৎসকরা বলছেন, এটি একটি মানসিক সমস্যা। আর কিছু মানুষ বলছে, এটি ভূতরে সমস্যা। আগে শুধু রাহীর শরীরের বিভিন্ন স্থান থেকে রক্ত বের হলেও বর্তমানে রক্তের সাথে পোকাও বের হচ্ছে। তাছাড়া যেকোন ধরনের খাবার খেলেই সাথে সাথে বমি করে ফেলে দেয় রাহী।

রাহীর বাবা আব্দুর রহমান বিডি২৪লাইভকে একান্ত ভাবে বলেন, আমার মেয়ের কি রোগ হয়েছে ডাক্তারও বলতে পারছে না। সব জায়গায় আমি ওর চিকিৎসা করিয়েছি। আগে ও ঠিক মত খেতে পারতো কিন্তু এখন খাওয়ার সাথে সাথে বমি করে দিচ্ছে। নাক দিয়ে সব কিছু বের হয়ে যায়।

তিনি আরও বলেন, ‘আমি এখন অসহায় হয়ে পড়েছি। কোন ভাবেই আর পারছি না। আমার মেয়ের চিকিৎসা করাতে আমি আমার সব কিছু শেষ করে ফেলেছি। ওকে উন্নত চিকিৎসার জন্য প্রধানমন্ত্রীর সহযোগিতা চাচ্ছি।’

অসুস্থ রাহী বলেন, ‘আমার অবস্থা আগের চেয়ে অনেক খারাপ। এখন আমি ঠিক মতো চলাফেরাও করতে পারছি না। আমি এখন এক স্থানে বেশিক্ষণ দাঁড়িয়ে কিংবা বসে থাকতে পারি না। যার কারণে আমার পড়ালেখা একদম বন্ধ। আমি যাতে দ্রুত সুস্থ হয়ে এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিতে পারি। আপনারা আমাকে সাহায্য করবেন।’

এ ব্যাপারে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেডিকেল কলেজের মেডিসিন বিশেষজ্ঞ ড. শেখ মো. শামসুজ্জামান বিডি২৪লাইভকে বলেন, ওর যে সমস্যা এটা মেডিকেল সায়েন্স’র ভাষায় মানসিক সমস্যা বলা হয়ে থাকে। এই সমস্যাগুলো সব পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে দেখা যায় এটা সাইকোলজিক্যাল সমস্যা থেকে এসেছে। মানুষ সাইকোলজিক্যাল সমস্যা শুনলেই মনে করে পাগল। আসলে সাইকোলজিক্যাল মানে শুধু পাগল না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*