সেমিফাইনাল খেলবে বাংলাদেশ, তবে…

শুরুটা করি টাইগার সমর্থকদের দুঃসংবাদ দিয়ে। সেটা হলো- আইসিসি ক্রিকেট বিশ্বকাপে চোটে পড়েছেন মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন। এছাড়া অলরাউন্ডার মোসাদ্দেক হোসেনও চোটে পড়েছেন। তবে সাইফুদ্দিনের চোটের সর্বশেষ অবস্থা জানা যাবে আজ শনিনবার (২২ জুন)।

সাইফুদ্দিন শেষ পর্যন্ত চোটের কারণে বিশ্বকাপ থেকে ছিটকে পড়ে তাহলে দলে ডাক পেতে পারেন স্প্রিড স্টার তাসকিন আহমেদ।এদিক গতকাল শ্রীলঙ্কার জয়ে বিশ্বকাপ হঠাৎ জমে উঠল। ইংল্যান্ডকে ২০ রানে হারিয়ে দিয়েছে শ্রীলঙ্কা। স্বাগতিকদের হারে বিশ্বকাপের সেমিফাইনালের আশা বেঁচে থাকল টাইগারদের।

এখন আসি একটা পরিসংখ্যান দিকে ইংল্যান্ড গত ২৭ বছর বিশ্বকাপে অস্ট্রেলিয়া, ভারত ও নিউজিল্যান্ডের সাথে জিতেনি। শেষ বার ১৯৯২ সাল ভারত ও অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে জিতেছিল। আর এই বিশ্বকাপে পরবর্তী ৩টি খেলা দলগুলোর সাথে। তাই ইংল্যান্ডের বিগত ২৭ বছরের ইতিহাস দেখে নতুন করে সেমিফাইনালের স্বপ্ন দেখতেই পারে বাংলাদেশ!

দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে নিউজিল্যান্ডের জয়ের পর বাংলাদেশের সেমিফাইলের পথ দুর্বোধ্য হয়ে যায়, আবার গতকাল শ্রীলঙ্কার কাছে ইংল্যান্ডের হারের পর সম্ভাবনার দুয়ার খুলে যায়। অনেক যদি কিন্তুর মাঝে দুলছে মাশরাফি-সাবিকদের সেমিফাইনালের স্বপ্ন।

চলুন বিশ্বকাপের পয়েন্ট টেবিলে একবার চোখ বুলিয়ে নেয়া যাক-

৬ ম্যাচে ১০ পয়েন্ট নিয়ে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে রয়েছে অস্ট্রেলিয়া। ৫ ম্যাচে ৯ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে আছে নিউজিল্যান্ড। ৬ ম্যাচে ৮ পয়েন্ট নিয়ে তার পরে ইংল্যান্ড তৃতীয় অবস্থানে। ৪ ম্যাচে ৭ পয়েন্ট নিয়ে ভারত চারে। ৬ ম্যাচে ৬ পয়েন্ট নিয়ে শ্রীলঙ্কা পাঁচে। আর ৬ ম্যাচে ৫ পয়েন্ট নিয়ে বাংলাদেশ ছয়ে। ওয়েস্ট ইন্ডিজ, দক্ষিণ আফ্রিকা ও পাকিস্তান তিন পয়েন্ট করে নিয়ে সাত, আট ও নয়ে অবস্থান রয়েছে। দক্ষিণ আফ্রিকা ও পাকিস্তান ছয়টি করে ম্যাচ খেললেও ওয়েস্ট ইন্ডিজ খেলেছে পাঁচটি ম্যাচ। কোনো পয়েন্ট না নিয়ে আফগানিস্তান একেবারে পয়েন্ট টেবিলের তলানীতে অবস্থান করছে।

এখন ইংল্যান্ড যদি ২৭ বছরের ইতিহাস সত্য প্রমাণিত করে পরবর্তী তিনটি ম্যাচ হেরে যায় আর বাংলাদেশ যদি পরবর্তী তিনটি ম্যাচ জিতে যায় তাহলে বাংলাদেশ সরাসরি সেমিতেই খেলবে। তবে এ ক্ষেত্রে শ্রীলঙ্কাকেও তিনটি ম্যাচের মধ্যে একটিতে হারতে হবে। তাহলে নয় ম্যাচে ইংল্যান্ডের হবে আট, বাংলেদেশের হবে ১১ আর শ্রীলঙ্কার হবে ১০। অর্থাৎ ইংল্যান্ড বাকি ম্যাচগুলো, শ্রীলঙ্কা দুটিতে আর বাংলাদেশ বাকি তিনটিতে জয় পেলেই সেমিফাইনাল।

ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও পাকিস্তান যদি তাদের বাকি চারটি ম্যাচই জিতে যায় সেক্ষেত্রে তাদের পয়েন্টও হবে বাংলাদেশের সমান ১১। সেক্ষেত্রে রান রেট বিবেচনায় আসবে। রান রেটে এখন পর্যন্ত এগিয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজ (+০.২৭২), পিছিয়ে পাকিস্তান (-১.৯৩৩)। আর বাংলাদেশের রান রেট -০.৪০৭। তবে ইংল্যান্ড যদি পরবর্তী দুটি ম্যাচ জিতে যায় তাহলে সরাসরি সেমিতে চলে যাবে। সেক্ষেত্রে কাগজে-কলমের কোনো হিসেব আর কাজে আসবে না।

পয়েন্ট টেবিল বিবেচনা ও সাম্প্রতিক ফর্ম বিবেচনায় এখন পর্যন্ত তিনটি দলের সেমিফাইনাল নিশ্চিত বলা যায়। দলগুলো হলো নিউজিল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া ও ভারত। ইংল্যান্ড এই তালিকায় সবার উপরেই থাকতো যদি শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে না হারতো। স্বাগতিকদের হারের কারণেই নানা সমীকরণ এসেছে সামনে। গোল বলের খেলায় কোনো বিশ্বাস নেই, যেকোনো মুহুর্তে যেকোনো কিছুই ঘটতে পারে। আবার ইতিহাসও বলছে ইংলিশরা পারবে না!

পরিশেষে একথায় বলতে চাই ১৬ কোটি বাঙালি অনেক আশা নিয়ে তাকিয়ে আছেন মাশরাফি-সাকিব-তামিম-মুশফিকদের দিকে। তারাই যে পারবেন আশা পূরণ করতে! সঙ্গে শুধু লাগবে একটু ভাগ্য।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

[X]