একটি প্রতিষ্ঠানে একজন শিক্ষার্থীও পাশ করবে না, এটা কেন হবে

শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি বলেছেন, আমরা অবশ্যই চাই শূন্য পাশের প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা শূন্য হোক। একটি প্রতিষ্ঠানে একজন শিক্ষার্থীও পাশ করবে না, এটা কেন হবে? এটা অত্যন্ত দুঃখজনক। নিশ্চয়ই কোন প্রতিষ্ঠানে সকল শিক্ষার্থীই এমন হয় না।বুধবার (১৭ জুলাই) সচিবালয়ে এইচএসসি ও সমমানের পরিক্ষার ফল প্রকাশ উপলক্ষে আয়োজিত সংবাদিক সম্মেলনে এক প্রশ্নের জবাবে শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি একথা বলেন।

দীপু মনি বলেন, শূন্য পাশের এসব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে আমাদের আরও ব্যাপকভাবে নজরদারির মধ্যে আনা প্রয়োজন। এসব প্রতিষ্ঠান কর্তৃপক্ষকে আমরা ডাকছি, সভা করছি। তাদের নিয়ে আমরা চেষ্টা করছি যে, কী করে তাদেরকে এই অবস্থা থেকে বের করে আনা যায়।

গুচ্ছ ভর্তি চালুর বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর কাছে সরকার অপারায়গ কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, এক্ষেত্রে কোন বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের লাভ-লোকশানের বিষয় আছে সেটা আমাদের কাছে মুখ্য নয়। আমাদের মূল লক্ষ্য হচ্ছে শিক্ষার্থীদের ভর্তি প্রক্রিয়াটি সহজ করা। একজন শিক্ষার্থী ৫টি বা ৭টি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরিক্ষা দিতে গিয়ে সারা বাংলাদেশে ছুটে বেড়াচ্ছে। এটা কঠিন।

মন্ত্রী বলেন, যাদের আর্থিক সামর্থ্য নেই তারা তো প্রতিটি বিশ্ববিদ্যালয়ের ফরম তুলে সারাদেশে ঘুরে ঘুরে পরিক্ষা দেওয়া কঠিন। এসব শিক্ষার্থী সংকটের মধ্যে পড়ে যাবে সেটা কাম্য নয়।দীপু মনি বলেন, এখানে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের ফরম বিক্রয় থেকে টাকা ইনকাম মুখ্য করে দেখলে চলবে না। এখানে দেখতে হবে শিক্ষার্থীদের পিতা-মাতার সামর্থ্যের বিষয়টি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*