Published On: Tue, Jan 16th, 2018

’সাক্ষাৎ মৃত্যু’র মুখোমুখি হয়ে ফিরেছেন যেসব তারকা

মৃত্যু তো আসবেই, অবধারিত সত্য বলে কথা। জন্মিলে মরিতে হয়। এইটাই স্বাভাবিক। মৃত্যুর সঙ্গে লড়াই করে জেতার সাধ্য মানুষের নেই।

তবে ভাগ্যে সহায় হলে এবং মনের জোর থাকলে অনেক সময় অবধারিত মৃত্যুর মুখ থেকেও ফিরে আসে মানুষ। শোবিজ জগতেও আছেন এমন কিছু তারকা। যারা মরণব্যাধিতে আক্রান্ত হয়ে বা ভয়াবহ দুর্ঘটনার স্বীকার হয়েও ফিরে এসেছেন মৃত্যুর মুখ থেকে।

মনীষা কৈরালা:  ‘মন’ ‘বম্বে’এবং  ‘দিল সে’র মতো জনপ্রিয় সব ছবির নায়িকা মনীষা কৈরালা।  এক সময় বলিউডের প্রথম সারির অভিনেত্রী ছিলেন তিনি।  ২০১২ সালে জরায়ুর ক্যানসারে আক্রান্ত হয়ে পড়েন মিষ্টি হাসির এই নায়িকা। যার কারণে অনেকটা দূরে সরে পড়তে বাধ্য হন রূপালী পর্দা থেকে। দীর্ঘ চিকিৎসার পর এখন তিনি ক্যানসার মুক্ত।

লিজা রে:  আশির দশকের শেষ দিকের বলিউডের পর্দা কাঁপানো জনপ্রিয় অভিনেত্রী  লিজা রে। ২০০৯ সালে তিনি আক্রান্ত হয়ে পড়েন ‘মালটিপল মায়োলেমা’য়।  এর পরও বেশ কিছু ডকুমেন্টরি ছবি করেছিলেন তিনি এই মরণব্যাধি নিয়েই নিয়ে।  এক বছর পর নিজেকে ‘সুস্থ’ বলে ঘোষণা করেন এই অভিনেত্রী।

 

অনুরাগ বসু:  ২০০৪ সালে ব্লাড ক্যানসারে আক্রান্ত হয়েছিলেন রণবীর কাপুরের ‘বরফি’ ছবির পরিচালক অনুরাগ বসু।  চিকিৎসকেরা জানিয়েছিলেন, তাঁর বাঁচার আশা ছিল ৫০ শতাংশ। কিন্তু মরণব্যাধিকে জয় করে কেমোথেরাপি চলার সময়েই লিখেছিলেন ‘লাইফ ইন এ মেট্রো’ এবং ‘গ্যাংস্টার’ ছবির চিত্রনাট্য। এখন তিনিও সম্পূর্ণ সুস্থ।

অভিনেত্রী মুমতাজ:  সুনিপূণ অভিনয় দক্ষতা দিয়ে এক সময় শাসন করেছেন বলিউড ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রি।  ২০০২ সালে স্তন ক্যানসারে আক্রান্ত হন এই নায়িকা।  মুমতাজের বয়স তখন ৫৪। ছয় বার কেমোথেরাপি এবং ৩৫ বার রেডিয়েশন নেয়ার পরেও নায়িকা বলেছিলেন ‘আমি সহজে হার মানব না।’ সত্যি হার মানেননি তিনি। দীর্ঘ চিকিৎসার পরে সুস্থ হয়ে ফিরে আসেন মুমতাজ।

অমিতাভ বচ্চন:  সময়টা ২৬ জুলাই ১৯৮২। বেঙ্গালুরুতে মনমোহন দেশাইয়ের ‘কুলি’ ছবির শুটিং করার সময় ভয়াবহ দুর্ঘটনার কবলে পড়েন বলিউড শাহেনশাহ অমিতাভ বচ্চন। ব্রিচ ক্যান্ডি হাসপাতালে একই দিনে দুইবার অস্ত্রোপচার হয় তাঁর। শেষ পর্যন্ত ২ আগস্ট হাসপাতাল থেকে ছাড়া পান শাহেনশাহ। প্রায় মৃত্যুর মুখ থেকে ফিরে ওই দিন কার্যত ‘নবজন্ম’হয়েছিল তাঁর।

ঋত্বিক রোশন:  ২০১৩ সালের জুলাই মাস।  খবর মেলে গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েছেন বলিউডের হার্টথ্রব অভিনেতা ঋত্বিক রোশন।  চিকিৎসকেরা জানান,  মস্তিষ্কে রক্ত জমাট বেধে গেছে অনস্ক্রিন ‘সুপারহিরো’র। পরের মাসেই ‘ক্রিশ থ্রি’ছবির প্রচারণার কাজ।  সবাইকে চমকে দিয়ে ছবির প্রচারে নেমে পড়েন অভিনেতা।  বলেন, ‘অস্ত্রোপচার তো মাথায় হয়েছে, মনের জোর একই আছে।’

শাহরুখ খান:  বলিউড বাদশাহ শাহরুখ খানকে এক সময় ‘কিং অফ সার্জারি’ও বলা হত। কারণ হচ্ছে,  গত ২৫ বছরের মধ্যে আট বার অস্ত্রোপচার হয়েছে তার। দেখলে বোঝা যাবে? বলিউডের স্পট লাইটে এখনও তিনি বাদশা।

Read also:

রসুনের ১২ টি অবিশ্বাস্য স্বাস্থ্য উপকারিতা যা জানলে আপনি অবাক হবেন

স্বাস্থ্য উপকারিতা – রসুন পেঁয়াজ পরিবারের একটি অংশ এবং এটিকে একটি “বাল্ব’ বলে, ১০-২০ টি ছোট অংশকে বলা হয় ‘ক্লভ’। প্রত্যেকটি ছোটো ক্লভের মধ্যে অনেক পরিমাণে স্বাদ ও ঔষধি বৈশিষ্ট্য থাকে।

রসুন আপনার স্বাস্থ্যের ওয়ান স্টপ সমস্যার সমাধান এবং অন্যান্য সমস্যা সমাধান করে যা আপনার বাড়িতে বা আপনার চারপাশের প্রাকৃতিক কারনে হয়ে থাকে। কিভাবে রসুনের অনেক বৈশিষ্ট্য রয়েছে ?

সালফার-সমন্বিত যৌগ, অ্যালিকিন তাজা রসুনে পাওয়া যায়, এন্টিবাকাইটিরিয়া এবং এন্টি-ফিঙ্গাল প্রোপার্টিগুলি রসুনে আছে, এবং কিছু চমকপ্রদ দাবিগুলি উল্লেখ করা হয় তার মধ্যে এটি ক্যান্সারের কিছু কিছু রোগ প্রতিরোধ করতে পারে।

এটি ভিটামিন বি ১, বি ২, বি ৩, বি ৬, ফোলেট, ভিটামিন সি, ক্যালসিয়াম, আয়রন, ম্যাগনেসিয়াম, ম্যাঙ্গানিজ, ফসফরাস, পটাসিয়াম, সোডিয়াম এবং জিংকের মতো পদার্থ দ্বারা সমৃদ্ধ।

সুতরাং, এর কিছু বিস্তীর্ণ সুবিধা দেখুন।

১। ঠান্ডা প্রতিরোধ এবং চিকিৎসা করে।

অ্যান্টি অক্সিডেন্টস সঙ্গে সমৃদ্ধ, দৈনিক আপনার রেসিপির মধ্যে রসুন আপনার ইমিউন সিস্টেম উপকৃত করতে পারে। যদি ঠাণ্ডা লেগে থাকে, তাহলে রসুন চায়ের মধ্যে দিয়ে খাওয়ার চেষ্টা করুন, কয়েক মিনিটের জন্য গরম জলে রসুনের কুচি দিয়ে মিশ্রণ করুন, তারপর ঠাণ্ডা করে সেটা পান করুন। আপনি স্বাদ উন্নত করতে মধু বা আদা যোগ করতে পারেন।

২। শোথ সোরিয়াসিস

যেহেতু রসুনে প্রদাহী বিরোধী বৈশিষ্ট্য আছে যা প্রমাণিত হয়েছে, এটা অস্বস্তিকর সোরিয়াসিস প্রাদুর্ভাব থেকে মুক্তিদানে সহায়ক হতে পারে। মসৃণ, ফুসকুড়ি মুক্ত ত্বকের জন্য ক্ষতিকারক এলাকায় একটু রসুন তেল ব্যাবহারের চেষ্টা করুন ।

৩। আপনার ওজন নিয়ন্ত্রণ করে।

রসুন আপনার ওজন নিয়ন্ত্রণ করতে সাহায্য করতে পারে, একটি গবেষণায় দেখা গেছে যে ইঁদুরকে রসুন সমৃদ্ধ খাদ্য খাওয়ায় তাদের ওজন এবং চর্বি কমেছে। এই পুষ্টির সুবিধা নেওয়ার জন্য, দৈনন্দিন রসুন দিয়ে রান্না করার চেষ্টা করুন।

৪। ক্রীড়াবিদের পায়ের চিকিৎসা

এটিতে এন্টি-ফিঙ্গাল প্রোপার্টি রয়েছে, কিছু লোক শপথ করে বলেছেন যে রসুনে ক্রীড়াবিদের ফাটা পাদদেশের নিরাময় ক্ষমতা আছে। উষ্ণ জল এবং রসুনের কুচি দিয়ে আপনার পা স্নান করান।

৫। ঠোঁটে ঘা

ঠোঁটে ঘা কমানর জন্যে ঘরোয়া উপায় হল একটু রসুন বেঁটে তাতে লাগিয়ে দেওয়া, এর প্রাকৃতিক প্রদাহক বিরোধী বৈশিষ্ট্য ব্যথা এবং ঘা কমাতে সাহায্য করতে পারে।

৬। চুলের ক্ষতি রোধ করে।

রসুন আপনার চুল পড়ার সমস্যার সমাধান করতে পারে যেহেতু এটে উচ্চ স্তরের অ্যালিসিন আছে যা চুল পড়ার সমস্যা দূর করে। আপনার মাথার উপর রসুনের কোয়া দিয়ে ঘষুন, আপনি এতে সবচেয়ে সুবিধা পাবেন চুল পড়ার সমস্যা থেকে। আপনি তেলে রসুন দিয়ে গরম করে সেটাও মাথায় লাগাতে পারেন।

৭। কানের সংক্রমণ চিকিৎসা

রসুনে এন্টাইকাইরাবিয়াল প্রোপার্টি রয়েছে কারন এর মধ্যে রয়েছে অ্যালিসিন। এই কারণে, এটা ব্যাপকভাবে কানের সংক্রমণ এবং অন্যান্য সংক্রমণের পাশাপাশি বিভিন্ন চিকিৎসায় ব্যবহৃত হয়। শুধু থ্রেড উপর একটি টুকরা রসুন রাখুন এবং এটি টেনে তুলে নিন যখন আর আরামদায়ক না হয় ।

৮। মশা দূরে রাখে।

বিজ্ঞানীরা নিশ্চিত নয়, কিন্তু মশা রসুন পছন্দ করেনা। এক ডাক্তার বলেছেন যে যদি মানুষ তাদের হাতে পায়ে রসুন ঘসে তাহলে মশা তাদের থেকে দূরে থাকে। প্রাকৃতিক ভাবে মশা দূর করতে হলে রসুনের তেল, পেট্রোলিয়াম জেলির একটি মিশ্রণ তৈরি করুন।

৯। প্রাকৃতিক রক্ত সংশোধক

প্রতিদিন সকালে ফোঁড়া ঢেকে ফেলতে ক্লান্ত? এটা ভিতর থেকে আপনার রক্ত শুদ্ধ করে বাইরে সুস্থ ত্বক পেতে সাহায্য করে। প্রতিদিন সকালে গরম জলে কাঁচা রসুনের দু’টি কোয়া দিয়ে সেটা পান করন এবং পুরো দিনে প্রচুর জল খান।

১০। আপনার গাছের চিকিৎসা।

বাগানের কীটপতঙ্গ রসুন পছন্দ করে না, সুতরাং রসুন, তেল, জল এবং তরল সাবান ব্যবহার করে একটি প্রাকৃতিক কীটনাশক তৈরি করুন। এটি একটি বোতলে নিয়ে গাছে স্প্রে করুন। এটা কীটপতঙ্গ দূর করতে সাহায্য করে।

১১। ব্রণ এর চিকিৎসা

এটা প্রধান উপাদান না ব্রণের মেডিসিনের, কিন্তু রসুন প্রাকৃতিকভাবে এর প্রতিকার করে। এটির অ্যান্টিঅক্সিডেন্টগুলি ব্যাকটেরিয়া গুলি ধ্বংস করে, তাই রসুনের কোয়া নিয়ে ব্রণের ওপর ঘসা একটি কার্যকর সাময়িক চিকিৎসা ।

১২। স্প্লিন্টর সারায়

রসুনের একটি টুকরো রূপালী উপর একটি ব্যান্ডেজ বা টেপ দিয়ে আচ্ছাদিত করলে, বহু বছর ধরে এটি প্রতিকার করে। প্রাকৃতিক উপায়ে জনপ্রিয়তা লাভের সাথে সাথে বর্তমান ব্লগাররা এই কাজকে শপথ করে।

Leave a comment

XHTML: You can use these html tags: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <s> <strike> <strong>

[X]