স্টিভ রোডসই তাহলে বাংলাদেশের হেড কোচ!

সংক্ষিপ্ত তালিকায় একজন করে অস্ট্রেলিয়ান, ইংলিশ ও দক্ষিণ আফ্রিকানের নাম আছে বলে জানিয়েছিলেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসান। সেই সঙ্গে এও নিশ্চিত করে রেখেছিলেন যে বাংলাদেশ দলের নতুন হেড কোচ নামি কেউ হবেন না। নিজেদের তালিকা হেড কোচ নিয়োগ প্রক্রিয়ার পরামর্শক গ্যারি কারস্টেনের হাতেও ধরিয়ে দিয়েছিল বিসিবি। এর সঙ্গে নিজের পছন্দের নামগুলোও বিশ্লেষণ করে ভারতের হয়ে ২০১১-র বিশ্বকাপজয়ী কোচের একটি নাম সুপারিশ করার কথা ছিল। এরই মধ্যে দক্ষিণ আফ্রিকার সাবেক এই ব্যাটসম্যান বাংলাদেশের জন্য জুতসই হবেন, এমন একজনের নামও প্রস্তাব করেছেন বলে জানা গেছে। আর প্রস্তাবিত সেই নামটি একজন ইংলিশ কোচের। যাঁর খেলোয়াড়ি জীবন চন্দিকা হাতুরাসিংহের মতোই গড়পড়তা মানের। ইংল্যান্ডের হয়ে ১১ টেস্ট এবং ৯টি ওয়ানডে খেলে নিজেকে সেভাবে মেলে ধরতে না পেরে ছিটকে পড়া স্টিভ রোডস অবশ্য পরে কোচিং পেশায় হাত পাকিয়েছেন। সাকিব আল হাসানদের পরবর্তী হেড কোচ হওয়ার লড়াইয়ে আপাতত সবচেয়ে এগিয়ে থাকা নামটি তাঁরই।

বাংলাদেশের খেলোয়াড়দের মধ্যে একমাত্র সাকিবেরই আগে তাঁর সঙ্গে কাজ করার অভিজ্ঞতা আছে। প্রথম বাংলাদেশি ক্রিকেটার হিসেবে ২০১০ সালে কাউন্টি দল উস্টারশায়ারের হয়ে খেলার সময় রোডসও ছিলেন দলটির ডিরেক্টর অব ক্রিকেট। সে সময় সাকিবের দলভুক্তি নিয়ে সংবাদমাধ্যমে উচ্ছ্বসিত প্রতিক্রিয়া জানানো সাবেক এই উইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যান অবশ্য লম্বা সময় পার করেছেন উস্টারশায়ারে। এই দলটির পাশাপাশি খেলেছেন ইয়র্কশায়ারের হয়েও। ফার্স্ট ক্লাস ক্রিকেটে ১২টি সেঞ্চুরি করা রোডস উইকেটকিপিংয়ের পাশাপাশি ছয় কিংবা সাত নম্বরে বেশ কার্যকর ব্যাটসম্যান হিসেবেও পরিচিত ছিলেন। খেলা ছাড়ার পর  উস্টারশায়ারেই কোচ হিসেবে যোগ দেওয়া রোডস পরে হন ডিরেক্টর অব ক্রিকেটও। ২০০৬ থেকে ২০১৭-র পর্যন্ত এই পদে থাকার পর এক অপ্রীতিকর ঘটনায় চুকিয়ে ফেলেন উস্টারশায়ারের সঙ্গে ৩৩ বছরের সম্পর্ক। ধর্ষণের অভিযোগে এক তরুণ ক্রিকেটারের গ্রেপ্তার হওয়ার ঘটনা কর্তৃপক্ষকে জানাতে বিলম্ব করায় তাঁকে পাঠানো হয় বাধ্যতামূলক ছুটিতে। তাত্ক্ষণাৎ চাকরি ছেড়ে দেওয়া রোডসের পরবর্তী ঠিকানা হতে পারে বাংলাদেশ।

কোচ নিয়োগ প্রক্রিয়ার সঙ্গে যুক্ত একটি সূত্র তাঁর সঙ্গে বিসিবির যোগাযোগের বিষয়টি নিশ্চিত করে এও জানিয়েছে যে আলোচনা এগিয়ে গেছে অনেক দূর। কারস্টেনের পরামর্শে তিন ফরম্যাটের জন্য ভিন্ন ভিন্ন ব্যাটিং কোচের ভাবনা থেকে আপাতত সরে আসা দেশের সর্বোচ্চ ক্রিকেট প্রশাসন যেকোনো মূল্যে ১৫ জুনের মধ্যেই হেড কোচ নিয়োগ দিতে চায়। আগে নিজেরা নানাজনের কাছে প্রত্যাখ্যাত হলেও এবার সেই সুযোগ নেই। কারণ প্রক্রিয়াটি এগোচ্ছে কারস্টেন হয়ে। এই দক্ষিণ আফ্রিকান রোডসের সম্মতি নিয়েই প্রস্তাব করেছেন তাঁর নাম। কাজেই ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরের আগে সাকিবদের হেড কোচের পদে বসতে যাওয়া নামটি সম্ভবত স্টিভ রোডসেরই।

Read also:যারা সকাল বেলায় লেবুজল পান করেন, জেনে নিন তার ফলাফল কতটা মারাত্মক হতে পারে…লেবুজল পান করেন- অধিকাংশ ক্ষেত্রে আমরা লেবুজল পান করার সময় চোখ মুখ কুঁচকে এক অদ্ভুত অভিব্যক্তি প্রকাশ করে থাকি। যদিও আমরা প্রায় সকলেই বিশ্বাস করি সকালে ঘুম থেকে উঠে এক গ্লাস লেবু জল পান করা স্বাস্থ্যের পক্ষে খুবই ভালো।লেবুর রস গরম জলের সাথে মিশিয়ে সেই মিশ্রণ সকালে এক গ্লাস খেলে আমাদের শরীরের অতিরিক্ত মেদ কমাতে সহায়তা করে ।কোন সন্দেহ নেই এটি একটি অবাক করা পদ্ধতি যা সাম্প্রতিক আবিস্কৃত হয়েছে। এই পদ্ধতির গুণাবলীও বহুবিধ কিন্তু এই মিশ্রণ প্রস্তুতিকরনের ক্ষেত্রে একটি ভুল পন্থা অবলম্বন করা হয়ে থাকে।আপনিও সাবধান হোন, পরের বার এই মিশ্রণ তৈরির ক্ষেত্রে যাতে কোন ভুলচুক না হয়।সঠিক মিশ্রণ সেবন করুন ও উপকার পান ।সকালে ঘুম থেকে উঠে খালি পেটে লেবু জল পান করা আমাদের শরীরের বহুবিধ উপকার সাধনে গুরত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে ।এটি আমাদের শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাকে বাড়াতে সহায়তা করে, ত্বকের ঔজ্জ্বল্যতা বৃদ্ধি করে এবং শরীরের মেদ কমাতে সহায়তা করে। এছাড়াও এই পানীয়টি ঠান্ডা লাগা, জ্বর ও সর্দি কাশির হাত থেকেও আমাদের প্রতিরোধ করে।এই লেবুর জুস আমাদের শরীরে প্রচুর পরিমাণে পটাশিয়াম ও ভিটামিনের জোগান দেয় এবং এর ফলে আমাদের স্বাস্থের শ্রীবৃদ্ধি ঘটে ।তাই তো আমরা বলি প্রতিদিন সকালে এক গ্লাস লেবু জল পান করুন কিন্তু তা তৈরি করার পদ্ধতি যেন সঠিক হয় ।ছবিতে দেখানো লেবু জল প্রস্তুতের পদ্ধতিটি ভুল আছে কারন এর মধ্যে লেমন পিল ব্যবহার করা হয়নি ।লেবুর টুকরো বা পিল পুরো ফলের সবচেয়ে পুষ্টিকর অংশ তাই এটি ব্যবহার করুন।লেবুটিকে পিস পিস করে কাটুন এরপর সেগুলির রস বের করে জলের সাথে মিশিয়ে নিন, এছাড়াও রস বেরোনোর পরে লেবুর একটি থকথকে অংশ থাকে সেটিকেও লেবুর জলের সাথে মিশিয়ে দিন। মিশ্রণের জল যেন গরম হয়। এরপর ওই মিশ্রণ সেবন করুন ।তাই বলি সঠিক পদ্ধতিতে এই পানীয়টি প্রস্তুত করুন এবং তার উপকারিতা পান ॥